কিভাবে চাকরীর সাক্ষাতের জন্যে প্রস্তুতি নিবেন

এই প্রতিদ্বন্দ্বীতামুলক চাকরির বাজারে চাকরি পাওয়া আর একটি সোনার হরিণ পাওয়া একই কথা। প্রতিযোগিতামুলক চাকরির বাজারে এই সোনার হরিণ ধরতে…

সূর্য্যদয়ের দেশ জাপানে যারা ক্যারিয়ার গড়তে চান তাদের জন্য সুখবর !!!

বিশ্ব অর্থনীতিতে জাপানের অবস্থান তৃতীয় জাপানে যাওয়া, চাকুরী করা বা স্থায়ী নিবাস আমাদের অনেকেরই স্বপ্ন।সে স্বপ্ন এখন বাস্তবায়নেরদারপ্রান্তে। প্রতি বছর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি জমাচ্ছেন জাপানে। জাপানের বয়স্ক এবং কমতে থাকা জনসংখ্যার কারণে সৃষ্ট ব্যাপক শ্রম ঘাটতি মোকাবেলার জন্য নির্মাণখাত, কৃষি, মৎস্য এবং রেস্তোরাঁ শিল্পসহ বেশকয়েকটি খাতে অতি জরুরি ভিত্তিতে বিদেশী কর্মী প্রয়োজন। জাপান সরকার বাংলাদেশ থেকে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে প্রচুর পরিমানে (প্রায় ৫ লক্ষাধিক) দক্ষ ও অদক্ষ লোক/শ্রমিক নিয়োগ করবে।সম্প্রতিজাপানের সংসদে এ সম্পর্কিত একটি শ্রম আইন পাস হয়। ইতমধ্যে জাপান-বাংলাদেশ সম্পর্কের উন্নয়ন ও দ্বিপক্ষীয় সমজতা চুক্তি সাক্ষর হয়। সরকারি উদ্যোগে একটি প্রকৌশলী দল জাপানে কাজে যোগ দিয়েছে।তার পাশাপাশি বেসরকারিভাবে কতিপয় স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান জনবল রপ্তানি কাজকরছে। স্কিল জবস যাদের মধ্যে অন্যতম ও অভিজ্ঞ। জাপানে যাওয়ার জন্য জাপানি ভাষা শিক্ষা অতীব জরুরি ও প্রধান আবশ্যক বিষয়।তার পাশাপাশি জাপানি সংস্কৃতি, নিয়ম কানুন, আচার আচরণ,রীতিনীতি সম্বন্ধেও জানতে হবে। কারন জাপানের সংস্কৃতি বিশ্বের অন্য দেশ থেকে সম্পুর্ন আলাদা।জাপানি ভাষা ও সংস্কৃতি সমন্ধে জানা লোকেরাজাপানে গিয়ে সহজে মিশতে পারে ও অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থাকে। যারা জাপানে চাকুরী নিয়ে যেতে ইচ্ছুক তাদের জন্য ভাষা শিক্ষা, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রশিক্ষণ এবং অন্যান্য প্রক্রিয়া বিষয়ক যাবতীয় কার্য (যেমন:চাকুরীর আবেদন, যোগাযোগ,সভা, সেমিনার, প্রশিক্ষণ, পাসপোর্ট, ভিসা ইত্যাদি) স্কিল জবস (skill.jobs) বহুদিন ধরে সফলতার সাথে করে আসছে।ইতমধ্যে তারা জাপানে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে দক্ষ লোকবল পাঠিয়েছে।